টেস্টে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক জয়

উত্তেজনা আর অনিশ্চয়তা পাশ কাটিয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে স্মরণীয় জয় তুলে নিলো বাংলাদেশ। টিম অস্ট্রেলিয়াকে ২০ রানে হারিয়েছে লাল-সবুজের দল। সাকিব আল হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুলদের ঘূর্ণির সামনে দ্বিতীয় ইনিংসে ২৪৪ রানেই গুটিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। পাঁচ টেস্টে অজিদের বিপক্ষে এটাই প্রথম জয় বাংলাদেশের। গতবছর অক্টোবরে ঢাকাতে ইংল্যান্ডকে হারিয়েছিল মুশফিকরা। ওটাই ছিল কোনো বড় দলের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট জয়।

প্রথম ইনিংসে ২৬০ রান করেছিল বাংলাদেশ। জবাবে প্রথম ইনিংসে ২১৭ রানে অস্ট্রেলিয়াকে গুটিয়ে দেয় টাইগার বোলাররা। দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ ২২১ রানে অলআউট হলে অস্ট্রেলিয়ার সামনে জয়ের লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৬৫। সাকিব আল হাসানের স্পিনে অসিরা অলআউট হয় ২৪৪ রানে। ২৬৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতে পথ হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। ২৮ রানে দুই উইকেট হারিয়ে বসে দলটি। অসি ওপেনার ম্যাট রেনশকে ফেরান মেহেদী হাসান মিরাজ। পরের ওভারে উসমান খাজাকে ফেরান সাকিব আল হাসান। ইনিংসের শুরুতে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে খেলছিলেন ম্যাট রেনশ। তবে নবম ওভারে মিরাজের নিচু হয়ে আসা বলটা ঠেকাতে পারেননি অসি ওপেনার। বল গিয়ে লাগে তাঁর প্যাডে। ফিল্ডারদের আবেদনে সাড়া দিতে দেরি হয়নি আম্পায়ারের। পরের ওভারে সাকিবকে উড়িয়ে মারতে যান উসমান খাজা। স্পিনের বিপক্ষে কখনই সাবলীল ছিলেন না এই ব্যাটসম্যান। ফিরতে পারতেন ডেভিড ওয়ার্নারও। তবে স্লিপে ক্যাচ ছেড়েছেন সৌম্য সরকার।

সাকিব আল হাসানের বলে লেগবিফোর হয়ে ফিরে যান ওয়ার্নার। আউট হওয়ার আগে ১১২ রান করেন এই অসি ব্যাটসম্যান। কয়েক ওভার পর অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথকেও সাজঘরমুখী করেছেন সাকিব। পিটার হ্যান্ডসকম্বকেও খুব বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে দেননি তাইজুল ইসলাম। দ্রুত তিনটি উইকেট হারিয়ে বেশ চাপের মুখেই পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। আর বাংলাদেশ শিবিরে জেগে ওঠে জয়ের আশা। এরপর উইকেটরক্ষক ম্যাথু ওয়েডকেও ফেরান সাকিব। রিভিউ নিলেও বাঁচতে পারেননি অসি উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। এরপর নিজের বলে অ্যাশটন অ্যাগারের ক্যাচ নিয়ে বাংলাদেশের সম্ভাবনা আরো জোরদার করেন তাইজুল। এরপর নাথান লায়ন ও প্যাট কামিন্স ২৯ রানের জুটি বাঁধলেও মিরাজ ফিরিয়ে দেন লায়নকে। শেষ উইকেট জুটিতে কামিন্স বড় কয়েকটি শট মারলেও হ্যাজেলউডকে ফিরিয়ে টাইগারভক্তদের আনন্দে ভাসান তাইজুল ইসলাম। সাকিব আল হাসান নেন ৫ উইকেট। এ ছাড়া তাইজুল তিনটি ও মিরাজ নেন দুটি উইকেট।

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ২৬০ (৭৮.৫ ওভার)

(তামিম ইকবাল ৭১, সৌম্য সরকার ৮, ইমরুল কায়েস ০, সাব্বির রহমান ০, সাকিব আল হাসান ৮৪, মুশফিকুর রহিম ১৮, নাসির হোসেন ২৩, মেহেদী হাসান মিরাজ ১৮, তাইজুল ইসলাম ৪, শফিউল ইসলাম ১৩, মোস্তাফিজুর রহমান ০*; জস হ্যাজলেউড ০/৩৯, প্যাট কামিন্স ৩/৬৩, নাথান লায়ন ৩/৭৯, অ্যাশটন আগার ৩/৪৬, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ১/১৫)।

অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস: ২১৭ (৭৪.৫ ওভার)

(ডেভিড ওয়ার্নার ৮, ম্যাট রেনশ ৪৫, উসমান খাজা ১, নাথান লায়ন ০, স্টিভেন স্মিথ ৮, পিটার হ্যান্ডসকম্ব ৩৩, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ২৩, ম্যাথু ওয়েড ৫, অ্যাশটন আগার ৪১, প্যাট কামিন্স ২৫, জস হ্যাজলেউড ৫; শফিউল ইসলাম ০/২১, মেহেদী হাসান মিরাজ ৩/৬২, সাকিব আল হাসান ৫/৬৮, তাইজুল ইসলাম ১/৩২, মোস্তাফিজুর রহমান ০/১৩, নাসির হোসেন ০/৩)।

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: ২২১ (৭৯.৩ ওভার)

(তামিম ইকবাল ৭৮, সৌম্য সরকার ১৫, তাইজুল ইসলাম ৪, ইমরুল কায়েস ২, মুশফিকুর রহিম ৪১, সাকিব আল হাসান ৫, সাব্বির রহমান ২২, নাসির হোসেন ০, মেহেদী হাসান মিরাজ ২৬, শফিউল ইসলাম ৯, মোস্তাফিজুর রহমান ০*; জস হ্যাজলেউড ০/৩, প্যাট কামিন্স ০/৩৮, নাথান লায়ন ৬/৮২, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ০/২৪, অ্যাশটন আগার ২/৫৫, উসমান খাজা ০/১)।

অস্ট্রেলিয়া দ্বিতীয় ইনিংস: ২৪৪ (৭৫.৫ওভার)

(ডেভিড ওয়ার্নার ১১২, ম্যাট রেনশ ৫, উসমান খাজা ১, স্টিভেন স্মিথ ৩৭, হ্যান্ডসকম ১৫, ম্যাক্সওয়ের ১৪, লায়ন ১২,কামিন্স ; মেহেদী হাসান মিরাজ ২/৮০, নাসির হোসেন ০/২, সাকিব আল হাসান ৫/৮৫, তাইজুল ইসলাম ৩/৬০, মোস্তাফিজুর রহমান ০/৮)।

শেয়ার করুন